আজ: বৃহস্পতিবার ৪ঠা মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৭ই জানুয়ারি ২০১৯ ইং, ১০ই জমাদিউল-আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

ঐক্যফ্রন্টের যেসব নেতারা শপথ নেননি

বৃহস্পতিবার, ০৩/০১/২০১৯ @ ১:৫১ অপরাহ্ণ । জাতীয় দিনের সেরা প্রধান খবর রাজনীতি শীর্ষ খবর

নিউজ ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীরা আজ শপথ নেননি। শপথ নেবেন না বলে আগেই ঘোষণা দিয়েছে ঐক্যফ্রন্ট নেতারা। তারা এই নির্বাচনে নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে নির্বাচন বাতিলের জন্য স্মারক লিপি দেবেন নির্বাচন কমিশনে।

এ জোটের প্রার্থীরা বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয় থেকে নির্বাচন কমিশনের গিয়ে এই স্মারকলিপি দেবেন।

আজ বেলা ১১টায় সংসদ ভবনের পূর্ব ব্লকের প্রথম লেভেলের শপথকক্ষে নতুন সংসদ সদস্যদের শপথ অনুষ্ঠিত হয়। সংবিধান অনুযায়ী-২৯১ জনকে শপথবাক্য পাঠ করান দশম সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মহাজোটের নতুন এমপিরা একসঙ্গে সমস্বরে স্পিকারের সঙ্গে শপথবাক্য পাঠ করেন। সংসদ সদস্যদের শপথবাক্য পাঠ করানোর আগে নিয়ামানুযায়ী স্পিকার নিজেই শপথগ্রহণ করেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী মহাজোটের ২৮৮ এবং তিন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যের শপথগ্রহণের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু হল একাদশ জাতীয় সংসদের।

মহাজোট এমপিরা শপথ নিলেনও এতে বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিত সাত জনপ্রতিনিধি শপথগ্রহণ করেননি। শপথ অনুষ্ঠানেও তাদের দেখা যায়নি।  তারা ‘ভোট কারচুপি’ও ‘অনিয়মের’প্রতিবাদস্বরূপ সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়ে সরকারের বৈধতা দেয়ার বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন।

তবে আজ শপথ না নিলেও তাদের সুযোগ শেষ হয়ে যায়নি। আগামী ৯০ দিনের মধ্যে তাদের শপথ নিতে হবে। সংবিধান অনুযায়ী-সংসদ অধিবেশন শুরুর ৯০ দিনের মধ্যে তাদের শপথ নিতে হবে, তা না হলে তাদের সদস্যপদ বাতিল হয়ে যাবে।

শপথ অনুষ্ঠান কেন্দ্র করে সকাল ১০টা থেকেই এমপিরা সংসদ ভবনে প্রবেশ করতে শুরু করেন। দশম সংসদের সংসদ নেতা ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা একে একে প্রবেশ করতে থাকেন সংসদ ভবনের পূর্ব ব্লকের শপথকক্ষে।

এমপিরাও হাত নেড়ে সংসদে প্রবেশ করেন। সব মিলে সংসদ ভবন এলাকায় একটি উৎসবমুখর পরিবেশের তৈরি হয়।

নিয়মানুযায়ী দুপুরে পার্লামেন্টারি বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হবে। সেখান থেকে দলনেতা নির্বাচিত হবেন। তার পর দলের নেতা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করে বলবেন, আমাদের নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা আছে সংসদে। তখন রাষ্ট্রপতিকে তিনি সরকারপ্রধান করার অনুরোধ করবেন। তার পরেই গঠিত হবে নতুন সরকার।

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান বি. চৌধুরী
পুন:নির্বাচনের দাবিতে ইসিতে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট