আজ: বৃহস্পতিবার ১৩ই আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জুন ২০১৯ ইং, ২৩শে শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী

চট্টগ্রামের সিনেমা হলগুলোতে ভরা মৌসুমেও দর্শক খরা চলছে

সোমবার, ১০/০৬/২০১৯ @ ২:৩৬ পূর্বাহ্ণ । চট্টগ্রাম বিনোদন

নিউজ ডেস্ক: এখন সিনেমা হল মালিকরা ব্যবসা করার জন্য ঈদের মৌসুমের অপেক্ষায় থাকেন। ঈদে যা একটু লাভের মুখ দেখেন। তবে এবারের ঈদে যেসব সিনেমা মুক্তি পেয়েছে সেগুলো এখন পর্যন্ত খুব একটা দর্শক টানতে পারছে না। কেউ বলছেন বিশ্বকাপ ক্রিকেটের প্রভাব পড়েছে ঈদের সিনেমায়। কেউ বলছেন, ভাল সিনেমার অভাবে দর্শক হলমুখী হচ্ছে না। সিনেমার বড় একটি বাজার চট্টগ্রাম। এখানের হলগুলোতে ঈদের সিনেমা দেখার জন্য প্রতি বছরই বেশ দর্শক সমাগম হয়। তবে এবার ব্যতিক্রম দেখা যাচ্ছে। ঈদের সিনেমাগুলো দর্শক টানতে পারছে না। দর্শক টানতে না পারায় হতাশ চট্টগ্রামের একটি মাল্টিমিডিয়া সিনেপ্লেক্সসহ চারটি সিনেমা হলের কর্তৃপক্ষ। সিনেমা হলগুলো হচ্ছে, সিনেমা প্যালেস, আলমাস, দিনার এবং সিলভার স্ক্রিন। শাকিব খান ও বুবলী অভিনীত পাসওয়ার্ড সিনেমাটি চলছে আলমাস সিনেমা হলে। মালেক আফসারী পরিচালিত এ সিনেমাটির ট্রেলার প্রকাশের পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নকলের অভিযোগ উঠেছে। সিনেমা প্যালেসে চলছে শাকিব-ববি অভিনীত নোলক। সিনেপ্লেক্সের প্লাটিনাম স্ক্রিনে নোলক সিনেমাটির পাশাপাশি অনন্য মামুনের আবার বসন্ত প্রদর্শিত হচ্ছে। দিনার সিনেমা হলে চলছে নয়া মাস্তান নামে একটি পুরনো চলচ্চিত্র। আলমাস সিনেমা হলের ব্যবস্থাপক সাবের আহমেদ ঈদের পরদিন জানান, আমাদের সিনেমা হলে সিট আছে ৯৬৭টি। শাকিব খানের সিনেমা ঈদে মুক্তি পেলে সাধারণত হাউজফুল হয়। এবারও ভেবেছিলাম হাউজফুলই হবে। আমাদের কপাল খারাপ। সন্ধ্যা পর্যন্ত তিনটি শো মিলে হাজারখানেক দর্শক পেয়েছি। সাবের আহমেদ জানান, ঈদের দিন ইমপ্রেস টেলিফিল্মের আলোয় ভুবন ভরা সিনেমাটি প্রদর্শিত হয়েছে। সেখানে দর্শক সমাগম একেবারেই হয়নি। আলমাস সিনেমা হল ব্যবস্থাপনার সঙ্গে জড়িত আব্দুল আউয়াল জানান, আমি ৪৭ বছর ধরে সিনেমা হলের সঙ্গে আছি। বাংলা সিনেমার এমন দুরবস্থা আগে দেখিনি। ঈদের সময়ও যদি দর্শক না আসে, তাহলে আর কী বলতে পারি! তিন বছর আগে আয়নাবাজি সিনেমা দেখার জন্য সবচেয়ে বেশি দর্শক হয়েছিল। এবার শাকিব খানের সিনেমা নিয়ে যে প্রচার হয়েছে, তাতে আমাদের আশাও ছিল বেশি। কিন্তু এমন পরিস্থিতিতে পড়ব ভাবিনি। চট্টগ্রামের প্রথম মাল্টিমিডিয়া প্রেক্ষাগৃহ সিলভার স্ক্রিন। এখানে দুটি স্ক্রিন, প্লাটিনাম ও টাইটেনিয়ামে সিনেমা প্রদর্শিত হয়। প্লাটিনামে আসন আছে ৭২টি। সেখানে বাংলা সিনেমা চলে। টাইটেনিয়ামে চলে ইংরেজি সিনেমা। সিলভার স্ক্রিনের ম্যানেজার (অপারেশন) সাঈদা ফাতিমা জাহান দীবা জানান, প্লাটিনাম স্ক্রিনে চারটি শো থাকে। ঈদের দিন থেকে আমরা দুই শো-তে নোলক এবং বাকি দুই শো-তে আবার বসন্ত চালাচ্ছি। ঈদের দিন তো দর্শক একেবারে ছিল না বললেই চলে। বৃহ¯পতিবার দর্শক কিছুটা বেড়েছে। গড়ে ৩০-৩২ জন দর্শক থাকছে। তবে শাকিব খানের নোলকের চেয়ে আবার বসন্ত চলচ্চিত্রটি দেখার জন্য দর্শক সমাগম বেশি হচ্ছে। ভেবেছিলাম, ঈদের দিন থেকেই অনেক বেশি দর্শক পাব। সে আশা পূরণ হয়নি। এদিকে চট্টগ্রামের হল মালিকরা আশা করছেন, আগামী দিনগুলোতে ঈদের সিনেমার দর্শক বাড়বে।

ধর্মীয় অনুষ্ঠান সুন্দরভাবে পালনে সামাজিক বন্ধন দৃঢ়তা পায়: রিজিয়া রেজা চৌধুরী
‘ভারত’-এ সুনামি ঘটিয়েছে সালমান!
Free Download WordPress Themes
Download WordPress Themes
Download Best WordPress Themes Free Download
Download Nulled WordPress Themes
udemy paid course free download
download xiomi firmware
Premium WordPress Themes Download
udemy free download

সর্বশেষ ১০ খবর