আজ: শুক্রবার ১০ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৪শে মে ২০১৯ ইং, ১৮ই রমযান ১৪৪০ হিজরী

ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু : চট্টগ্রামে ৪৭৯টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত

শুক্রবার, ২০/০৫/২০১৬ @ ২:৫৩ অপরাহ্ণ । চট্টগ্রাম জাতীয়

 নিউজ ডেস্ক : ঘূর্ণীঝড় রোয়ানু’র ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় চট্টগ্রামে ৪৭৯টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোজবাহ উদ্দিন।  দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে চট্টগ্রামে ২৪২টি মেডিকেল টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে। একই সাথে ঘূর্ণীঝড় পরবর্তী বৃষ্টিপাতের কারণে পাহাড় ধস ঠেকাতে ইতোমধ্যে মাইকিং শুরু করেছে জেলা প্রশাসন।
শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরী সভায় এ তথ্য জানান তিনি।
তিনি আরো জানান, উপকূলীয় এলাকায় লোকজনকে সরিয়ে নিতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হচ্ছে। এছাড়া নগরীর পতেঙ্গা কাট্টলীসহ পাহাড়ি এলাকায়ও মাইকিং করা হচ্ছে বলে জানান জেলা প্রশাসক। জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে খোলা কন্ট্রোলরুম সার্বক্ষনিক খোলা রয়েছে।
জেলা প্রশাসক জানান, ৪৭৯টি আশ্রয় কেন্দ্রে প্রায় সাড়ে চার লাখ মানুষকে আশ্রয় দেয়া সম্ভব হবে। তাদের জন্য শুকনা খাবার (চিড়া-গুড়), প্রাথমিক চিকিৎসা বাক্স, মোমবাতি, ম্যাচ মজুদ রাখা হয়েছে। উপজেলা অফিস থেকে এসব বিতরণ শুরু হবে দ্রুত সময়ের মধ্যে। এছাড়া দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে চট্টগ্রামে ২৪২টি মেডিকেল টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এরমধ্য চট্টগ্রাম মহানগরে ৯টি এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৫টি করে মেডিকেল টিম রয়েছে। আর অন্যগুলো কমিউনিটি ক্লিনিকের টিম কাজ করবে।
এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার আগাম প্রস্তুতি হিসেবে পরবর্তী আদেশ না আসা পর্যন্ত চট্টগ্রামের সকল সরকারি ও আধাসরকারি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারিদের সবরকমের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন সম্মেলন কক্ষে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির এক জরুরি সভায় এ তথ্য জানানো হয়।
জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ জানান, ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় নেয়া হয়েছে সম্ভাব্য সবধরনের প্রস্তুতি। এর অংশ হিসেবে প্রস্তুত রাখা হয়েছে উপজেলার সকল স্কুল, কলেজ, মাদরাসা ও আশ্রয় কেন্দ্রগুলো। ইতোমধ্যে উপজেলা পর্যায়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা পর্যায়ে একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলার পাশাপাশি সকল উপজেলায় খোলা হয়েছে কন্ট্রোলরুম। জেলা কন্ট্রোলরুমের নম্বর হচ্ছে ৬১১৫৪৫।
উপকূলীয় এলাকায় মাইকিং করা হচ্ছে, বাংলাদেশ বেতারে সতর্কতা সংকেত বারবার ঘোষণা করা হচ্ছে। সরকারি-বেসরকারিভাবে স্বেচ্ছাসেবকরা ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী উদ্ধার কাজের জন্য ইতোমধ্যে চট্টগ্রামের উপকূলীয় উপজেলাগুলোতে অবস্থান করছে। জেলা প্রশাসনের ভাণ্ডারে পর্যাপ্ত ত্রান মজুদ রয়েছে এছাড়া উপজেলা শুকনো খাবার প্রেরণ করা হচ্ছে বলে জানান ডিসি।
সভায় অংশ নিয়ে নিজেদের সব ধরনের প্রস্তুতি কথা জানান ফায়ার সার্ভিস, আনসার ভিডিপি, রেড ক্রিসেন্ট, সড়ক ও জনপথ বিভাগ, বিদ্যুৎ, পরিবেশ অধিদপ্তর, মৎস্য অধিদপ্তরসহ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরাও।
এদিকে জেলার উপকূলবর্তী উপজেলা সমূহে জেলা প্রশাসন ও  নগরীর উপকূলবর্তী ওয়ার্ড সমূহে সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে জনসাধারণকে সচেতন করতে মাইকিং শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে সংস্লিষ্ট সূত্র।

আসছে ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু : আঘাত হানতে পারে দুপুরেই
ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু : কক্সবাজার প্রস্তুত
Download Nulled WordPress Themes
Download Nulled WordPress Themes
Premium WordPress Themes Download
Free Download WordPress Themes
ZG93bmxvYWQgbHluZGEgY291cnNlIGZyZWU=
download mobile firmware
Download Best WordPress Themes Free Download
ZG93bmxvYWQgbHluZGEgY291cnNlIGZyZWU=

সর্বশেষ ১০ খবর